বগুড়ায় সরকারি চাল উদ্ধার করলো পুলিশ। ছবি-আকাশ
স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়া সদর উপজেলার গোকুল দক্ষিণ পাড়ার দুটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পাচারের জন্য অবৈধভাবে মজুদ করে রাখা দুস্থদের বরাদ্দকৃত ভিজিএফ ও ভিজিডির ২৬ বস্তায় রক্ষিত ৭৮০ কেজি চাল উদ্ধার করেছে সদর থানা পুলিশ। মঙ্গলবার বিকেলে পুলিশ অভিযান চালিয়ে চালগুলো উদ্ধার করলেও ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে আটক করতে পারেনি। এ ঘটনায় উর্ধতন কর্মকর্তাদের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান সদর থানার এস আই বেদার উদ্দিন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে ইউনিয়ন পরিষদের আশপাশের চিহ্নিত কিছু টাউট বাটপার পরিষদের কিছু কর্তাব্যক্তিদের সাথে আতাত করে ভিজিএফ ও ভিজিডির বরদ্দকৃত চাল উপকারভোগীদের না দিয়ে স্বল্প মূল্যে কিনে বেশি দামে অন্যত্র বিক্রি করতেন বলে এলাকার জনসাধারণ অভিযোগ রয়েছে। মঙ্গলবার গোকুল ইউনিয়ন পরিষদে ৩৪১ জন উপকারভোগীর মাঝে ভিজিডির চাল বিতরণ করা হয়। এরমধ্যে ২৬ জন উপকারভোগীকে ৭৮০ কেজি চাল বিতরণ না করে গোকুল দক্ষিণ পাড়ার আজাহার ও সেকেন্দারের বাড়িতে মজুদ করে রাখা হয় বলে এলাকাবাসী অভিযোগ করেন।
গোপনে এ সংবাদ পেয়ে বগুড়া সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির এর নির্দেশে এস আই বেদার উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে পাচারের জন্য মজুদকৃত ২৬ বস্তা চাল উদ্ধার করেন। এ সময় এলাকার শত শত উৎসুক নারী পুরুষ উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গত ঈদুল ফিতরের আগে ১০৮ জন দুস্থদের মাঝে বিশেষ ওএমএস ১০৮০ কেজি চাল বিতরণ না করে চালগুলো পাচার করার লক্ষ্যে ইউনিয়ন পরিষদের পাশ্ববর্তী মাল্টি পারপাস সমিতির ঘরে মজুদ করে রাখা হয়।
খবর পেয়ে চলতি বছরের ৫ জুন শুক্রবার সন্ধ্যায় বগুড়া সদর থানার এস আই জহুরুল ইসলাম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল থেকে চালগুলো উদ্ধার করেন। ওই ঘটনায় স্থানীয় প্রশাসন শক্ত ব্যবস্থা না নেয়ায় চোরাকারবারিরা আবারো একইভাবে ভিজিএফ ও ভিজিডির চাল পাচারের চেষ্টা করেছে বলে এলাকার সচেতন জনসাধারণ মনে করেন।
সরকারী চাল দুস্থদের মাঝে বিতরন না করে পাচারের জন্য যারা অবৈধভাবে মজুদ করে রাখেন তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিতে বগুড়া জেলা প্রশাসকের নিকট আকুল আবেদন জানিয়েছেন।এলাকাবী আরো জানান, যাদের বাড়ি থেকে সরকারী চাল উদ্ধার করা হয়েছে তাদের আটক করলেই প্রকৃত চোরাকারবারীদের ধরা যাবে। এ ব্যাপাওে স্থানী ইউপি চেয়ারম্যান সওকাদুল ইসলাম সবুজ বলেন, প্রকৃত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্ত মুলক সাস্থির ব্যবস্থা করা হোক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here