করোনায় মারা গেলেন বেনাপোল রজনী ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার আমজাদ হোসেন-শেখ আফিল উদ্দিন এমপি’র শোকভ ছবি-কামাল
সুপ্রভাত বগুড়া (কামাল হোসে): করোনায় মারা গেলেন শার্শা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নাভারন হাসপাতালের অবসরপ্রাপ্ত উপ সহকারি কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার ও বেনাপোল রজনী ক্লিনিকের প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার আমজাদ হোসেন ( ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার সময় তিনি ঢাকা মিরপুর সেকশন ১২ রিজেন্ট হাসপাতালের আই সি ইউ তে করোনার চিকিৎসারতবস্থায় শেষ নিশ্বাষ ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তিনি এক ছেলে, এক মেয়ে, স্ত্রীসহ অসংখ্য আত্মীয়স্বজন ও শুভাকাঙ্খী রেখে গেছেন।
দীর্ঘ ৩৫ বছর যাবত বেনাপোলে গরীবের ডাক্তার হিসেবে পরিচিত ডাক্তার আমজাদ হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন ৮৫ যশোর-১(শার্শা)’র এমপি আলহাজ্ব শেখ আফিল আফিল উদ্দিন। তিনি মরহুমের আত্মার শান্তি কামনা করেছেন।
এদিকে মরহুমের মৃত্যুত্যে আরো শোক ও শোকসন্তোপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন শার্শা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক মঞ্জু, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নুরুজ্জামান, সহ সভাপতি আলহাজ্ব সালেহ আহমেদ মিন্টু, যুগ্ম সম্পাদক ও যশোর জেলা পরিষদের সদস্য অধ্যক্ষ ইব্রাহিম খলিল, বেনাপোল পৌর আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আলহাজ্ব এনামুল হক মুকুল, সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব নাসিরউদ্দিন, আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তাক হোসেন স্বপনসহ বিভিন্ন সামাজিক, রাজনৈতিক ও সুধী সমাজের মানুষ।
এছাড়া ডাক্তার আমজাদ হোসেনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তোপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বেনাপোল ইউপি চেয়ারম্যান ও বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব বজলুর রহমান বলেন দীর্ঘ ৩৫ বছর যাবত ডাক্তার আমজাদ ছিলেন বেনাপোলের গরীবের বন্ধু। তিনি নামমাত্র খরচ নিয়ে সাধারণ মানুষদের চিকিৎসা সেবা দিতেন। যার অকাল মৃত্যুতে বেনাপোলবাসী একজন গরীবের ডাক্তারকে হারালো।
এদিকে ডাক্তার আমজাদের মৃত্যুতে বেনাপোলের আরেকজন গরীবের ডাক্তারখ্যাত আব্দুল মান্নান বলেন, বিগত ৩৫ বছর যাবত একসময়ের ভূতুড়ে পল্লী বেনাপোলে ডাক্তার আমজাদ হোসেন, ডাক্তার জ্যোতিষ চন্দ্র, ডাক্তার আব্দুর রাজ্জাক, বাক্কা ডাক্তার, মিয়ারাজ ডাক্তার, আব্দুল হাই ডাক্তার, ইউসুফ ডাক্তার, মন্টু ডাক্তার, ওদু ডাক্তার ও তিনি দিনরাত ২৪ ঘন্টা পরিশ্রম করে এলাকার মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন।
তার মধ্যে গত হয়েছেন বাক্কা ডাক্তার মিয়ারাজ ডাক্তার, আব্দুল হাই ডাক্তার ও ইউসুফ ডাক্তার আর গত কয়েকদিন পূর্বে স্বাষকস্ট ও হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছেন জ্যোতিষ ডাক্তার। সর্ব্বশেষ শনিবার সন্ধ্যায় মারাগেলেন আমজাদ ডাক্তার। এনিয়ে গত কয়েকদিনের ব্যবধানে জ্যোতিষ ডাক্তার ও আমজাদ ডাক্তারের মৃত্যুতে বেনাপোলবাসী দু’জন গরীবের ডাক্তারকে হারালো। তিনি মরহুমদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।
এসময় তিনি আরো বলেন, রবিবার সকালে সীমিত মানুষের সমন্ময়ে মরহমের নামাজে জ্বানাযা শেষে রজনী ক্লিনিক অভ্যন্তরের পিছনে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন করা হবে। এখানে গণজমায়েত পূর্বক জ্বানাজা নামাজে সকলকে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। যার দেখভাল করবেন শার্শা উপজেলা প্রশাসন বলে জানান ডাক্তার আব্দুল মান্নান।
উল্লেখ্য, ডাক্তার আমজাদ হোসেন গত এক সপ্তাহ যাবৎ করোনা পজিটিভ নিয়ে প্রথমে নিজ বাসায়, পরে ঢাকা লিজেন্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার বিকাল সাড়ে ৬টার সময় মৃত্যুবরন করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here