বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্বামী ও চার বছরের শিশু সন্তানকে রেখে পরকীয়ার টানে প্রেমিকের হাত ধরে উধাও হয়েছে মা নামক এক নারী। ফলে এ যেন নারীর যৌনতার কাছে হার মানিয়েছে সন্তানের ভালবাসা। ছবি-ওহাব

সুপ্রভাত বগুড়া (আবদুল ওহাব): বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্বামী ও চার বছরের শিশু সন্তানকে রেখে পরকীয়ার টানে প্রেমিকের হাত ধরে উধাও হয়েছে মা নামক এক নারী। ফলে এ যেন নারীর যৌনতার কাছে হার মানিয়েছে সন্তানের ভালবাসা। বুধবার ২৪ জুন শিশুটির হৃদয় বিদারক কন্ঠে এসব তথ্য উঠে আসে।

শিশু পুত্র সিয়াম কেঁদে কেঁদে বলছে, আম্মু আমাকে না বলে চলে গেছে। আমি খাব না। আম্মুকে এনে দাও। তবে শিশুটি বারবার মায়ের জন্য কান্নাকাটি দেখে পাড়া পড়সীর চোখে পানি এলেও হৃদয় বিদারক এ কান্নার শব্দ পৌছেনা মা নামক ওই নারীর কানে।

স্বামী সুমন জানায়, ৫ বছর পূর্বে উপজেলার ছোট ডেরাহার গ্রামের এলেছার মেয়ে রিমা খাতুনের (২৩) সাথে তার বিয়ে হয়। সংসার জীবনে ৪ বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে। নাম সিয়াম। তবে বিয়ের পর থেকেই স্বামীর নিয়ন্ত্রণের বাইরে ছিল রিমা খাতুন।

গরীব ঘরের মেয়ে হলেও মুখে মেকআপ লাগিয়ে বড় ঘরের মেয়ে পরিচয়ে একাধিক ছেলের সাথে মোবাইলে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছে বলে অভিযোগ করেন স্বামী সুমন।

তবে এর পেছনে শাশুড়ির কু-পরামর্শ ছিল জানিয়ে সুমন বলেন, শাশুড়ি অর্থলোভী। তিনি নন্দীগ্রাম বাসস্ট্যান্ডের মডার্ণ ক্লিনিকে রিমাকে নার্স হিসেবে চাকুরি নিয়ে দেয়। ক্লিনিকে যাওয়ার কথা বলে গোপনে পরকীয়া প্রেমিকের সাথে পালিয়েছে। কিন্তু সন্তানের কথা একটিবারও ভাবেনি।

স্থানীয়রা জানান, এর আগেও রীমার পরকীয়ায় একাধিকবার এলাকায় শালিস হয়েছে। কিন্তু সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে মেনে নিয়েছিল সুমন। স্ত্রীকে পড়ালেখাও করিয়েছি। কিন্তু পরিনামে ফল এমন হবে তা কখনও কেউ ভাবেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here