প্রকৃতিতে আসছে আরও ভয়াবহ বিপর্যয়; ভারত মহাসাগরের বিশাল টেকটোনিক প্লেটে ফাটল! ছবি-সংগৃহীত

সুপ্রভাত বগুড়া (জ্ঞান-বিজ্ঞান): টেকটোনিক প্লেটের এই পরিবর্তনের ফলে অদূর ভবিষ্যতে ভয়াবহ ভূমিকম্প ও জলোচ্ছাসের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা ৷ একেবারে বিষে বিশ ৷ ২০২০ সালের বিপর্যয়ের তালিকা এখনই শেষ হচ্ছে না ৷ করোনা, আমফান, পঙ্গপালের পরে এবার আরও বড় বিপর্যয়ের আশঙ্কা ৷

জানা গেছে, ভারত মহাসাগরের নিচে বিশাল টেকটোনিক প্লেটে ফাটল ধরেছে ৷ বিজ্ঞানীদের এক অংশের দাবি, শুধু ফাটলই নয়, রীতিমতো ভেঙে দু’টুকরো হয়ে গিয়েছে ভারত ও অস্ট্রেলিয়ার মাঝে থাকা এই প্লেট ৷ টেকটোনিক প্লেটের এই পরিবর্তনের ফলে অদূর ভবিষ্যতে ভয়াবহ ভূমিকম্প ও জলোচ্ছাসের আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন বিজ্ঞানীরা ৷

লাইভ সায়েন্স-এর এক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, আট বছর আগে ভারত মহাসাগরের নীচে একের পর এক ভূমিকম্পের পর থেকেই ওই প্লেটের চলনে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায় ৷ পুরো ব্যাপারটাই ঘটছে সমুদ্রপৃষ্ঠের নীচে ৷ তাই পরিবর্তন এত সহজে নজর করা সম্ভব হয় না বলে জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা ৷ ভারত-অস্ট্রেলিয়ার মকরাঞ্চলে অবস্থিত ওই টেকটোনিক প্লেট প্রত্যেক বছর ০.০৬ মিলিমিটার করে সরে যাচ্ছে ৷

এইভাবে প্লেটগুলির সরে যাওয়ার কারণেই মারাত্মক ভূমিকম্পের সৃষ্টি হয় ৷ প্লেটের ফাটল ধরা অংশ যে গতিতে সরছে, তাতে এক মাইল ফাঁক তৈরি হতে অন্তত দশ লক্ষ বছর সময় লাগবে ৷ তাতে ফর্মুলা মানলে ২০ হাজার বছর পর ভয়ানক বিপর্যয়ের মুখোমুখি হবে পৃথিবী ৷

কিন্তু তাতেও বর্তমানে পুরোপুরি নিশ্চিন্ত হতে পারছেন না বিজ্ঞানীরা ৷ কারণ জলের নীচে থাকায় প্লেটের ন্যূনতম গতি বিচ্যুতি নজরে আসা প্রায় অসম্ভব ৷ এরকমই প্লেটের সংঘর্ষের কারণেই ২০০৪ সালে ভয়াবহ ভূমিকম্প ও সুনামির ঘটনা ঘটে ৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here