ঝিনাইদহ হরিনাকুন্ডতে ভালবাসার স্বীকৃতি না পেয়ে কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা! প্রতিকী-ছবি

সুপ্রভাত বগুড়া (রাসেল আহাম্মেদ, ঝিনাইদহ): ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার ফলসি গ্রামে তানিয়া নামে (২১) এক কলেজ ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে।
তিনি ওই গ্রামের আক্তার হোসেনের মেয়ে। গ্রামবাসি সুত্রে জানা গেছে, কলেজ ছাত্রী তানিয়ার সাথে একই গ্রামের ফজলুর রহমানের ছেলে কলমের (২৫) প্রেমের সম্পর্ক ছিল।

কিন্তু এই সম্পর্ক মেনে নিতে পারেনি মেয়ের পিতা মাতা। কয়েকদিন আগে কলমের সাথে তানিয়ার বিয়ের প্রস্তাব পাঠায় ছেলে পক্ষ। কিন্তু মেয়ের পিতা মাতা এ বিয়েতে রাজি হয়না। ইতিমধ্যে কলম অন্যত্র বিয়ে করে নতুন স্ত্রী নিয়ে সংসার সাজায়।

তানিয়া তার ভালবাসার মানুষকে হারিয়ে অনেকটাই ভেঙ্গে পড়ে। তার ভালবাসার স্বীকৃতি না পেয়ে মঙ্গলবার আত্মহননের পথ বেচে নেয় তানিয়া। তবে অনেকেই বলছে তানিয়া অন্তসত্তা ছিল।

বিষয়টি নিয়ে হরিণাকুন্ডু থানার এসআই আব্দুল জলিল জানান, ছেলে পক্ষের বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন মেয়ের পিতা মাতা। আর এতেই আত্মঘাতি হয় মেয়েটি। তিনি বলেন আমি গ্রামবাসির মুখে শুনেছি মেয়েটি অন্তঃসত্তা ছিল।

কিন্তু আমাদের কাছে এর কোন তথ্য প্রমান নেই। এসআই আব্দুল জলিল জানান, এ ঘটনায় হরিণাকুন্ডু থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। তবে তানিয়ার এমন মৃত্যুতে তার পরিবারের জেনো শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এলাকার সচেতন মহল মনে করে আত্মহত্যা হত্যা মহাপাপ আর আত্মহত্যা করা মানে বোকামি তানিয়া একজন কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী হিসেবে তার আত্মহত্যা করা ঠিক হইনি,তারা মনে করে জীবন যুদ্ধে আত্মহত্যা না  করে  জীবন যুদ্ধে সংগ্রাম করে বেচে থাকার নামই হলো জীবন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here