ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া ( ফ্যাশন ও রুপচর্চা ): টুসটুসে গোলাপি, পুরন্ত ঠোঁট পেতে কার না ইচ্ছে করে! কিন্তু সত্যি বলতে খুব বেশি মেয়ে তো আর স্বাভাবিক গোলাপি ঠোঁটের মালকিন হন না, তাই তাঁদের ভরসা হয়ে ওঠে লিপস্টিক!

তবে জানেন কি, খুব সাধারণ কিছু উপাদানের সাহায্যেই স্বাভাবিক গোলাপি ঠোঁট পেতে পারেন আপনি? হ্যাঁ, লিপস্টিকের সাহায্য ছাড়াই! বাকিটা পড়ে নিন!

গোলাপজল:
গোলাপের পাপড়ির মতো ঠোঁট পেতে ইচ্ছে করছে? বেছে নিন গোলাপজল! একমুঠো গোলাপের পাপড়ি খানিকটা দুধে ডুবিয়ে এক ঘণ্টা রাখুন। তারপর দুধ থেকে পাপড়িগুলো তুলে চটকে নিন।

চটকানো গোলাপ পাপড়িতে কয়েক ফোঁটা মধু মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। পাঁচ-দশ মিনিট রেখে দুধটা দিয়ে ধুয়ে ফেলে নরম তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন।

বিট:
লাল টুকটুকে এই সবজিটি শুধু স্বাস্থ্যের জন্য নয়, ঠোঁটের পক্ষেও খুবই ভালো! একটুকরো বিট কেটে নিয়ে ঠোঁটের উপর হালকা ঘষুন। বিটের রস আপনার ঠোঁটে গোলাপি আভা এনে দেবে এবং সেই সঙ্গে রোদের ক্ষতিকর প্রভাব থেকেও রক্ষা করবে!

টুথব্রাশ:
নরম ব্রিসলসের একটা টুথব্রাশ দিয়ে ঠোঁট হালকা স্ক্রাব করুন। ঠোঁটের উপর থেকে শুকনো, মৃত কোষ উঠে গিয়ে স্বাভাবিক গোলাপি আভা বেরিয়ে আসবে।

অলিভ অয়েল আর চিনি:
ফাটা ঠোঁটের সমস্যা কমাতে অলিভ অয়েল আর চিনির স্ক্রাব খুবই কাজের! এক টেবিলচামচ চিনি আর এক চাচামচ অলিভ অয়েল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে ঠোঁটে লাগান। পাঁচ মিনিট রেখে ভেজা কাপড় দিয়ে মুছে নিন। ঠোঁট স্বাভাবিক গোলাপি হয়ে উঠবে।

ডালিম:
ডালিম বা বেদানা ঠোঁটের জন্য কতটা উপকারী, তা কি জানেন? একমুঠো ডালিমের দানা নিয়ে চটকে নিন। তাতে দু’ টেবিলচামচ ঠান্ডা দুধ মিশিয়ে নিলে দানাদার একটা পেস্ট পাবেন।

ঠোঁটে লাগিয়ে 10-15 মিনিট রাখুন, তারপর বরফজলে ধুয়ে নিন। এক সপ্তাহ ধরে প্রতিদিন করলে ঠোঁটের রং চোখে পড়ার মতো গোলাপি হয়ে উঠবে।

গ্লিসারিন:
ঠোঁটের বাড়তি যত্ন নিতে চাইলে হাতের কাছে চিরকালীন গ্লিসারিন তো রয়েইছে! রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে গ্লিসারিনে তুলো ডুবিয়ে ঠোঁটে লাগিয়ে সারা রাত রেখে দিন। সকালে উঠে তুলতুলে গোলাপি ঠোঁট পাবেন।

শসা:
শসার রস গায়ের রং যেমন উজ্জ্বল করে, তেমনি ঠোঁটেও এনে দেয় গোলাপি আভা। শসা খাওয়ার সময় এক আধ টুকরো ঠোঁটেও ঘষে নিতে ভুলবেন না! খুব তাড়াতাড়ি গোলাপি নরম ঠোঁট হয়ে উঠবে আপনার নিত্যসঙ্গী!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here