ছবি-সংগ্রহ

সুপ্রভাত বগুড়া ( আন্তর্জাতিক ): করোনা ভাইরাসে দিশেহারা হয়ে পড়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। চীনের পর সবচেয়ে বেশি এই প্রাণঘাতী ভাইরাসে আক্রান্তের দেশটি হলো দক্ষিণ কোরিয়া। দেশটিতে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, আর দ্বিগুণ হারে বাড়ছে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা।

এর বাইরে ইতালিতেও ক্রমেই বাড়ছে করোনা আক্রান্ত রোগী এবং এখানে মৃত্যু হয়েছে ২ জন মানুষের।সাউথ চীনা মর্নিং পোস্ট জানিয়েছে, রবিবার পর্যন্ত দক্ষিণ কোরিয়ার মূল ভূখণ্ডে ৫৫৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪ জন।

সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৬ জন। দেশটির প্রধানমন্ত্রী চুং সি-কিউন এমন পরিস্থিতিকে ‘কবরের’ সঙ্গে তুলনা করেছেন।দক্ষিণ কোরিয়ার পর বেশি শঙ্কায় রয়েছে ইতালি।  গতকাল শনিবার ইতালির ইত্তরাঞ্চলীয় শহর পাদুয়ায় করোনায় ৭০ বছর বয়সী আরও এক নারীরর মৃত্যু হয়েছে। এর আগে এই শহরের ৭৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তি মারা যান।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৭৭ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ পাওয়া গেছে।দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শুক্রবার (২১ ফেব্রুয়ারি) ইতালির উত্তরাঞ্চলের লম্বার্ডিয়া এলাকায় ১৫ জন নতুন রোগী শনাক্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনার পরপরই ৫০ হাজার মানুষের ১০টি শহর বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এসব শহরের জনগণকে বাড়িতে অবস্থান করতে বলা হয়েছে। স্কুল, বার, চার্চ, সামাজিক অনুষ্ঠানসহ জনসমাগমস্থলে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

এছাড়া করোনা ভাইরাসে জাপানে আক্রান্ত ১৩৫ জন। সেখানে মারা গেছেন একজন। সুস্থ হয়েছেন ২২ জন। সিঙ্গাপুরে ৮৫ জন আক্রান্ত হলেও কেউ মারা যাননি। এই দেশটিতে কাজ করতে গিয়ে বাংলাদেশের পাঁচজন আক্রান্ত হয়েছেন। সেখানে আক্রান্তদের মধ্য থেকে ৩৭ জন সুস্থ হয়েছেন।প্রতিবেশী ভারতে আক্রান্ত হওয়া তিনজনই সুস্থ হয়েছেন।

নেপাল, শ্রীলঙ্কার অবস্থাও একই। দুই দেশে একজন করে আক্রান্ত হওয়া ব্যক্তি ইতিমধ্যে সুস্থ হয়েছেন। মালয়েশিয়ায় ২২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। ১৫ জন সুস্থ হলেও সাতজন এখনও হাসপাতালে আছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here