সুপ্রভাত বগুড়া (স্বাস্থ্য কণিকা): চীনের উহানে ছড়িয়ে পড়া নতুন করোনা ভাইরাস ঠেকাতে সতর্ক অবস্থায় রয়েছে বাংলাদেশ। প্রতিরোধে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চীন থেকে আসা সরাসরি ফ্লাইটের যাত্রীদের ফিজিক্যাল স্ক্রিনিং ও থার্মাল স্ক্যানারের ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সতর্কতা জারি করা হয়েছে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরেও। গত ৩১ ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে ধরা পড়ে নতুন এই ভাইরাস। আক্রান্তের সংখ্যা দুশো ছাড়িয়েছে। দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে চীনের অন্য শহর ও পার্শ্ববর্তী দেশেও।

এখন তা ছড়িয়ে পড়েছে দেশটির ৩ প্রদেশে। এরইমধ্যে মারা গেছেন ৩ জন। সরকারি হিসাবে আক্রান্ত দুইশ বলা হলেও, বিশেষজ্ঞদের দাবি, এই সংখ্যা অন্তত ১৭শ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, নিউমোনিয়ার সঙ্গে এই ভাইরাসের সংক্রমণের উপসর্গের অনেক মিল রয়েছে।

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার কারণে আতঙ্ক বাড়ছে দুনিয়াজুড়েই। ঢাকা-চীন রুটে প্রতিদিন ছয়টি ফ্লাইট যাওয়া-আসা করে। ভাইরাস প্রতিরোধে চীন থেকে আসা যাত্রীদের ফিজিক্যাল স্ক্রিনিং করানো হবে বিমানবন্দরে।

বিশেষ পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে থার্মাল স্ক্যানারের সংকেতে। এ ছাড়া চীন থেকে আসা যাত্রীদের তথ্য রাখার সিদ্ধান্তও নিয়েছে সরকার। সামুদ্রিক মাছের বাজার থেকে ভাইরাসটি ছড়ায় ধারণা করা হচ্ছে। এ ভাইরাসটি ছড়িয়েছে জাপান, সাউথ কোরিয়া ও থাইল্যান্ডেও।

সিঙ্গাপুর ও হংকং তাদের বিমানবন্দরে চীনের উহান থেকে যাওয়া যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করছে। যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিসকো, লস অ্যাঞ্জেলেস এবং নিউইয়র্ক বিমানবন্দরেও নেয়া হয়েছে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here